শিরোনাম
Home >> লীড নিউজ >> দোয়ারাবাজারে নিজের টাকায় রাস্তা নির্মাণ করলেন ইউপি সদস্য 

দোয়ারাবাজারে নিজের টাকায় রাস্তা নির্মাণ করলেন ইউপি সদস্য 

এনামুল কবির(মুন্না):-

কর্তৃপক্ষের কাছে বারবার আবেদন করেও কাজ না হওয়ায় নিজেদের টাকায়ই রাস্তা নির্মাণ করলেন দোয়ারাবাজার উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আলতাব আলী।

গ্রামটি সুরমা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড বরকত নগর ও গোজাউড়া অবস্থিত। আশপাশের গ্রামগুলো থেকে শিক্ষা-দীক্ষা,অর্থনীতিতে পিছিয়ে আছে এই গ্রাম। এখানে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। দুই কিলোমিটার দূরে বয়ে গেছে দোয়ারাবাজার সড়ক। কিন্তু মাত্র ২ কিলোমিটার সড়ক না থাকায় বরকত নগর ও গোজাউড়া গ্রামের মানুষকে অনেকটা পথ ঘুরে কষ্ট করে আসে হয় মহব্বত বাজার,দোয়ারাবাজার সড়কে। সুরমা ইউনিয়নের বরকত নগরবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি,মহব্বতপুর ৩ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক তৈরি করা।

কিন্তু সরকারের বিভিন্ন মহলে ধরনা দিয়েও কাজ হয়নি। সবাই শুধু প্রতিশ্রতি দিয়ে গেছেন। কাজের কাজ কেউ করেননি। তাই এবার সুরমা ইউনিয়নের বরকত নগর, গোজাউড়া ৯নং ওয়ার্ড মেম্বার আলব আলী নিজেদের টাকায় এই ১কিলোমিটার সংযোগ সড়ক তৈরি করছেন। প্রায় ২ লাখ টাকা ব্যয়ে এই সড়কটি তৈরি হচ্ছে। প্রচলিত শ্রমিকের দিয়ে আধুনিক যন্ত্রপাতি ব্যবহার না করে সড়কটি তৈরি হচ্ছে, তাই খরচ অনেকটাই কমে গেছে। গ্রামবাসী জনপ্রতিনিধি ও সরকারি দপ্তরগুলোতে একাধিকবার গেছেন। কিন্তু রাস্তা নির্মাণের আশ্বাস পাননি।

তাই আর অপেক্ষা না করে লোকজন মেম্বার আলতাব আলীকে বলে রাস্তা নির্মাণের কাজ শুরু করেন।উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের ওই গ্রামে গত ১০ জানুয়ারি  শুক্রবার সকালে দেখা যায়, নিজেনর টাকায় রাস্তা নির্মাণ করালেন ইউপির সদস্য আলতাব আলী। ২ দিন ধরে চলছে তাদের এ কাজ। ৪ ফুট উচ্চতা ও ১১ ফুট চওড়া প্রায় ১ কিলোমিটার রাস্তা তৈরি কাজ চলছে।

ইউপি সদস্য আলতাব আলী বলেন, আমি কারো কাছ থেকে টাকা আদায় করছি না। আমার নিজের টাকা দিয়ে রাস্থা নির্মাণ করছি। এ সড়কটি আমাদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল। এখন থেকে আমরা খুব সহজেই মহব্বত পুর সড়কে উঠতে পারব।

সানলাইট একাডেমীর সভাপতি সিরাজুল ইসলাম বলেন, ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আলতা আলীর নিজ টাকায় সড়কটি তৈরি করছেন। সড়ক না থাকায় বর্ষাকালে চলা চল করতে কষ্ট হয় এবং অর্ধেক পথ পানিতে ভিজে যেতে হতো। এ সড়কের ফলে মানুষের যাতায়াত ব্যবস্থা অনেক সহজ হয়ে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*