Home >> লীড নিউজ >> ঠাকুরগাঁও জেলা পীরগঞ্জ উপজেলা  আওয়ামী লীগের  ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন

ঠাকুরগাঁও জেলা পীরগঞ্জ উপজেলা  আওয়ামী লীগের  ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন

ঠাকুরগাঁও  প্রতিনিধি:মনসুর আলী

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর)। মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের এমপি রমেশ চন্দ্র সেন। সম্মেলন উদ্বোধন করবেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ঠাকুরগাঁও-২ আসনের এমপি দবিরুল ইসলাম। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাদেক কুরাইশী। সম্মেলনকে ঘিরে পীরগঞ্জ উপজেলা জুড়ে চলছে সাজ সাজ রব। নেতাকর্মীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা।  পীরগঞ্জ উপজেলা সম্মেলন সফল করতে এরই মধ্যে পীরগঞ্জ উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন ও পৌরসভা সম্মেলন সম্পন্ন করা হয়েছে। সম্মেলন সফল করতে বেশ তৎপর আওয়ামী লীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। শহরসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের মোড়ে মোড়ে ব্যানার ও ফেস্টুন সাটিয়েছেন সভাপতি ও সম্পাদক পদ প্রার্থীরা। এবার পীরগঞ্জ উপজেলা সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের পদ পেতে চার জন নেতা বেশ কয়েক দিন ধরেই ব্যস্ত সময় পার করছেন। এবার সভাপতি পদ পেতে সাবেক এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সিনিয়র সহ-সভাপতি ইমদাদুল হক, বর্তমান  পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আখতারুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক হওয়ার জন্য পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ৯০ দশকের ‘তুখোড়’ সাবেক ছাত্রনেতা গোলাম রব্বানী এবং পীরগঞ্জ  উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পীরগঞ্জ সরকারি কলেজের সাবেক জিএস রেজওয়ানুল হক বিপ্লব দিনরাত মাঠেই অবস্থান করছেন। এ বিষয়ে  পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী সাংবাদিকদের কে বলেন , আমি ৯০ দশকের এক সময় তুখোড় ছাত্রনেতা ছিলাম। দলের জন্য আমি অনেক কাজ করেছি এবং তিন বার জেলও খেটেছি। দল আমাকে ভালবাসে বিধায় আমি আজকে জেলা কমিটির সদস্য এবং পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে আছি। তাই আমি সব সময় দলের ও জনগণের সেবায় নিয়োজিত থাকি। পীরগঞ্জ উপজেলায় ৪১৮টি ভোট আছে আমি আশা ভোটাররা যদি আমাকে ভোট দেন তাহলে আমি সাধারণ সম্পাদক পদে জয়ী হবো।
একটি সূত্র জানায়, বিগত সময়ের সম্মেলনের চেয়ে এবারের সম্মেলন একটু জটিল হবে। সভাপতি পদে স্বাধীনতার পর থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেতা নির্বাচন হলেও এবার গোপন ভোট হবার সম্ভাবনাই বেশি। কারণ কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ।

পীরগঞ্জউপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রসঙ্গে উপজেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইকরামুল হক বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে সম্মেলন সম্পন্ন করতে আমরা চেষ্টা করছি। সম্মেলন সফল করতে সব প্রকার প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। দলের তৃণমূলের মতামতের ভিত্তিতে নেতা নির্বাচন হবে। আমার বিশ্বাস দলে নেতৃত্ব দিতে সক্ষম এমন ব্যক্তিকেই নেতা নির্বাচন করবে কাউন্সিলররা।

দেশের কন্ঠ ২৪.কম/হান্নান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*