শিরোনাম
Home >> লীড নিউজ >> পটুয়াখালী গলাচিপায় গৃহবধূ মৌসুমী হত্যায় আদালতে শ্বশুরের মামলা.

পটুয়াখালী গলাচিপায় গৃহবধূ মৌসুমী হত্যায় আদালতে শ্বশুরের মামলা.

পটুয়াখালী থেকে:-এম.জাফরান হারুন
পটুয়াখালীর গলাচিপায় মৌসুমী হত্যায় আদালতে ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে মৌসুমীর শ্বশুর মো. সাহাবুদ্দিন হাওলাদার (৪৫)। বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মামলাটি আমলে নিয়ে গলাচিপা থানা (ওসি) কে তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনে নির্দেশ দেন। মৌসুমী আমখোলা ইউনিয়নের রামানন্দ গ্রামের আলমগীর খান এর মেয়ে। সাহাবুদ্দিন উপজেলার গোলখালী ইউনিয়নের ছোট গাবুয়া মোশারেফ হাওলাদারের ছেলে। তিনি মৌসুমীর শ্বশুর হন। আসামীরা হলেন, ১.রাসেল হাওলাদার (২৪) ২.কুলসুম (২২) ৩.জহিরুল হাওলাদার (২০) ৪. ইমরান (২৫) ৫.মোসা আনোয়ারা (৪০)। গত ১২ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার মৌসুমীর বাবার বাড়ি আমখোলা ইউনিয়নের রামানন্দ গ্রামে মৌসুমীর বাবার বাড়ীতে মৃত্যুর ঘটনা ঘটে꫰

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ৭ মার্চ ২০১৮ তারিখ ইসলামী রিতিনীতি ও শরাহ শরিয়ত মোতাবেক রেজিষ্ট্রীকৃত কাবিনমূলে সাহাবুদ্দিনের ছেলে মোঃ হিরন এর সাথে আলমঙ্গীর খানের মেয়ে মৌসুমী আক্তার এর সাথে বিবাহ হয়। বিবাহের পর  থেকেই মৌসুমী আক্তার ও হিরন হাওলাদার সুখে শান্তিতে বসবাস করিয়া আসিতে থাকে। দাম্পত জীবন যাপন করিতে থাকে বিবাহের পর হইতে꫰ এদিকে রাসেল হাওলাদার মৌসুমী আক্তারের উপর ও হিরন হাওলাদারের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিশোধ নিবে বলিয়া মুঠো ফোনে হুমকি ধামকি প্রদান করেন বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়। আরও উল্লেখ্য করা হয় ঘটনার ২ দিন পূর্বে মৌসুমী আক্তার তার বাবার বাড়িতে যান। সাহাবুদ্দিন হাওলাদার কাছে জানতে চাইলে তিনি  বলেন, রাসেল হাওলাদারের সাথে আমার পুত্রবধু মৌসুমীর সাথে অবৈধ সম্পর্ক থাকায় আমরা জানতে পারায়, আমার পুএ বধু মৌসুমীকে হত্যা করা হয়। এবিষয়ে গলাচিপা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃআখতার মোর্শেদ প্রতিবেদককে জানান, আদালতে মামলা হয়েছে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*