শিরোনাম
Home >> লীড নিউজ >> চাটমোহরে মাদ্রসা ছাত্রীকে যৌন হয়রানী অভিযোগে শিক্ষক আটক

চাটমোহরে মাদ্রসা ছাত্রীকে যৌন হয়রানী অভিযোগে শিক্ষক আটক

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধিঃ-হাবিবুর রহমান শিমুল বিশ্বাস
পাবনার চাটমোহরে উপজেলার হান্ডিয়াল ইউনিয়নের বাঘলবাড়ি-কৈ বহুমুখী দাখিল মাদ্রাসার সহকারি শিক্ষকের বিরুদ্ধে  নবম শ্রেণীর এক মাদ্রসা ছাত্রীকে যৌন হয়রানী ও কু প্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগে আবদুল কুদ্দুস নামের এক সহকারী মাদ্রাসা শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। বেশ কিছুদিন হল অভিযুক্ত ঐ শিক্ষক ছাত্রীকে কু প্রস্তাব ও যৌন হয়রানীর চেষ্টা করে আসছিল। আর এ বিষয়টি অভিভাবকরা সহ এলাকাবাসী জানার পরে ঐ মাদ্রাসায় গিয়ে বিক্ষোভ করলে মঙ্গলবার বিকেলে পুলিশ সেখানে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে অভিযুক্ত শিক্ষককে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।
অভিযুক্ত শিক্ষক একই ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামের মৃত. মছির ফকিরের ছেলে। রাতেই অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন ভুক্তভোগী ছাত্রীর মা।

 

এলাকাবাসীরা জানান, অভিযুক্ত শিক্ষক আবদুল কুদ্দুস বেশ কিছুদিন হলো একই মাদ্রাসার নবম শ্রেণির ছাত্রীকে নানা ভাবে কৃপ্রস্তাব দিয়ে
আসছিল। মেয়েটি লোক লজ্জার কাউকে কিছু না বলে বিষয়টি গোপন করতে থাকে। গত রবিবার ফুলের গাছ নেওয়ার বাহানা করে বৃ-রায়নগর গ্রামে ওই ছাত্রীর বাড়িতে যান আবদুল কুদ্দুস। এ সময় বাড়িতে কেউ ছিল না। পরে ওই ছাত্রী তার শিক্ষককে ঘরে বসতে দিয়ে নাস্তা খেতে দেয়। নাস্তা খাওয়ার সময়
অভিযুক্ত শিক্ষক ওই ছাত্রীকে কু প্রস্তাব দিয়ে যৌন হয়রানীর চেষ্টা করে বলে অভিযোগ। পরে মেয়েটি এই ঘটনার বিষয়ে তার পরিবারকে জানায় এবং সোমবার মাদ্রাসা সুপার আবদুস সামাদ আজাদী এবং ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের মৌখিক অভিযোগ দেয়। কিন্তু অভিযুক্ত ওই শিক্ষক মাদ্রাসা সুপারের নিকট আত্মীয় হওয়ায় বিষয়টি ম্যানেজ করার চেষ্টা করেন এবং কাউকে না জানিয়ে মঙ্গলবার সকালে মাদ্রাসায় ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের নিয়ে ঘরোয়াভাবে বিষয়টি আপোষ মীমাংসা করার চেষ্টা করেন। বিষয়টি এলাকাবাসীর মধ্যে জানাজানি হলে উত্তেজনা শুরু হয়। মঙ্গলবার সকালে শত শত সাধারণ মানুষ এর সুষ্ঠ বিচার দাবি করে মাদ্রাসার সামনে এসে বিক্ষোভ দেখানো শুরু করলে অবস্থা বেগতিক দেখে মাদ্রাসা সুপার পুলিশকে জানায়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে ঘটনার বিষয়ে
সবার নিকট জেনে অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে। রাতে অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলার পরে বুধবার সকালে জেল হাজতে প্রেরণ করে পুলিশ। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে চাটমোহর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সেখ নাসীর উদ্দিন জানান, বিষয়টি জানার পরেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে এবং অভিযুক্ত শিক্ষককে আটক করে থানায় আনা হয়। রাতে ছাত্রীর মা বাদী হয়ে ঐ শিক্ষকের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন। বুধবার সকালে তাকে পাবনা জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*