শিরোনাম
Home >> লীড নিউজ >> ৭ম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষনের চেষ্টার অভিযোগ

৭ম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষনের চেষ্টার অভিযোগ

স্টাফ রির্পোটার: নিরেন দাস
জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুস সালাম আকন্দের বিরুদ্ধে ৭ম শ্রেণীর ছাত্রীকে ফুটবল খেলার ভাতা দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে তার নিজ নামীয় আক্কেলপুর হাসপাতাল মোড় সংলগ্ন আবাসিক হোটেল আজকের ঠিকানায় ডেকে নিয়ে ধর্ষনের চেষ্টার অভিযোগে আক্কেলপুর থানায় একটি এজাহার দায়ের করেছে মেয়ের পরিবার।
ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা গেছে আক্কেলপুর পৌরসভাধীন ৭ নং ওয়ার্ডের কেশবপুর দেওয়ান  পাড়া গ্রামের দেওয়ান এনামুলের কণ্যা আক্কেলপুর এফ, ইউ, পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭ম শ্রেণী পড়ুয়া মোছাঃ পাপিয়া গত ২০ সেপ্টেম্বর শুক্রবার জয়পুরহাট জেলা স্টেডিয়ামে ফুটবল খেলা শেষে উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুস সালাম আকন্দের গাড়িতে চরে বাড়ি ফিরে।
পরে পাপিয়া তার খেলোয়াড় ভাতা প্রাপ্তির জন্য চেয়ারম্যান কে ফোন করলে তিনি তাকে পরদিন সকালে তার অফিসে যেতে বলেন।
২১ সেপ্টেম্বর  শনিবার সকাল ১০ টায় পাপিয়া  তার মা পপি বেগমকে সঙ্গে নিয়ে চেয়ারম্যানের অফিসে তার অনুপস্থিতি দেখে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি আবাসিক হোটেল আজকের ঠিকানায় যেতে বললে তারা সেখানে পৌঁছালে চেয়ারম্যান পাপিয়াকে এককভাবে আবাসিক হোটেলের দুতলায় একটি রুমে ডেকে জারিয়ে ধরে ধর্ষনের চেষ্টাকালে ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে পাপিয়া রুম থেকে দৌড়ে নিচতলায় অবস্থানরত মায়ের নিকট উপস্থিত হয়ে ঘটনাটি খুলে বলে।
পপি বেগম তার মেয়ে পাপিয়াকে নিয়ে নিজ গ্রামের বাড়ি কেশবপুর দেওয়ান পাড়া ফিরে তার পিতা দেওয়ান এনামূল এবং এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের পরামর্ষে ২১ সেপ্টেম্বর রাত ৮ টায় আক্কেলপুর থানায় উপস্থিত হয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহ্জ্বা আব্দুস সালাম আকন্দের বিরুদ্ধে এ সংক্রান্ত একটি এজাহার দায়ের করেন।
ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মিরা জানতে থানায় উপস্থিত হয়ে অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কিরণ কুমার রায় এর সঙ্গে দেখা করে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি গণমাধ্যম কর্মিদের কালক্ষেপন করে দীর্ঘ ৩ ঘণ্টা পর বাদিনীর নিকট থেকে এজাহার গ্রহণ শেষে এক সাক্ষাৎকারে বলেন উপরোক্ত বিষয়ে আক্কেলপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহ্জ্বা আব্দুস সালাম আকন্দের বিরুদ্ধে থানায় একটি এজাহার গ্রহন করা হয়েছে এবং তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ঘটনার বিষয়ে আক্কেলপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম আকন্দর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ঘটনাটি সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। তিনি আরো বলেন পাপিয়া নামের মেয়েটিকে আমি চিনিনা, সে নিজেকে গরিব ও অসহায় বলে লেখাপড়ার জন্য গাইড বই কেনার টাকা চাইলে আমি তাকে ২ হাজার টাকা দিয়ে সাহায্য করেছি এবং ঐদিন দুপুর ২ টা ১০ মিনিটে আমি উক্ত মার্কেট থেকে বাড়ি ফিরে বিকাল ৫ টায় ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছিলাম।
পাপিয়ার খালা ফিরোজা বেগম গণমাধ্যম কর্মিদের জানান ২২ সেপ্টেম্বর রবিবার বিকাল ৩ টায় রুকিন্দিপুর ইউপি চেয়ারম্যান আহসান কবির আপ্লব প্রায় অর্ধশত লোকজনহ পাপিয়ার বাড়িতে গিয়ে তার পরিবারসহ তাকে উঠিয়ে নিয়ে গিয়ে হত্যা ও বিভিন্ন ভয় ভিতি প্রদর্শন করেছেন।
এমতাবস্থায় পরিবারটি চরম নিরাপত্তাহিনতায় ভুগছেন, তাদের আইনি সহায়তা জরুরী বলে পরিবারটি জানিয়েছে।
2 Attach

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*