Home >> রাজনীতি >> জয়পুরহাট জেলা ছাত্রলীগ উপর হামলার মামলার আসামী আ”লীগ নেতা মিঠুর জামিন।

জয়পুরহাট জেলা ছাত্রলীগ উপর হামলার মামলার আসামী আ”লীগ নেতা মিঠুর জামিন।

স্টাফ রিপোর্টারঃ- নিরেন দাস।
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ জয়পুরহাট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ছাত্রলীগ নেতা আবু বকর সিদ্দিক রেজার উপর হামলার দায়ের করা মামলার আসামী সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম – সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান মিঠু জামিন পেয়েছেন।
১১ ই সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুরে জয়পুরহাট অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক ইকবাল বাহার এ জামিনের আদেশ দেন।
মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা গেছে, গত ৫ ই সেপ্টেম্বর দিবাগত রাতে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া হোসেন রাজা ও সাধারন সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক রেজা দলীয় কাজ শেষে কয়েক জন সহকর্মীকে নিয়ে শহরের চিত্রাপাড়ার বাসায় ফিরছিলেন। এ সময় তাদের উপর সশস্ত্র হামলা হয়। এতে ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক রেজা গুরুতর আহত হলে সহকর্মী ও স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে দেন।
এ ঘটনায় গত রোববার রাতে জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক রেজা বাদী হয়ে জয়পুরহাট সদর থানায় আওয়ামীলীগ নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান মিঠু সহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।
বুধবার দুপুরে আসামী পক্ষের আইনজীবি এ্যাডভোকেট শাহিন ও এ্যাডভোকেট রায়হান নবী আওয়ামীলীগ নেতা হাসানুজ্জামান মিঠু’র পক্ষে জামিন আবেদন করলে বিচারক সার্বিক দিক বিবেচনা করে তার জামিন মঞ্জুর করেন।
এ ব্যাপারে হাসানুজ্জামান মিঠু ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করে জানান, “আমি শুধু আওয়ামীলীগ নেতাই নই, আমি নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, আমি সন্ত্রাসী হলে জনগণ আমাকে আগেই প্রত্যাখান করতেন। এ ছাড়া ওই ঘটনার সময়ে ঘটনার স্থান ও আমার প্রকৃত অবস্থান যে ভিন্ন জায়গায় ছিল, তা তথ্য প্রযুক্তির এ যুগে সহজে চিহ্নিত করা সম্ভব। বিজ্ঞ আদালত এ সব দিক বিবেচনা করে ন্যায়ের পক্ষে আদেশ দিয়েছেন। তবে সাময়িক ভাবে হলেও আমি ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছি বলে এ আওয়ামীলীগ নেতা বলেন।”
অপরদিকে রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবি এ্যাডঃ- নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল (পিপি) আওয়ামীলীগ নেতা ও জনপ্রতিনিধি হাসানুজ্জামান মিঠু’র জামিন লাভের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*