শিরোনাম
Home >> লীড নিউজ >> বামনায় ভুল চিকিৎসায়  শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ, চিকিৎসককে  অশ্লীল ভাষায় গালমন্দ ও শ্লীলতাহানীর চেষ্টা

বামনায় ভুল চিকিৎসায়  শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ, চিকিৎসককে  অশ্লীল ভাষায় গালমন্দ ও শ্লীলতাহানীর চেষ্টা

বরগুনা প্রতিনিধি:
বরগুনার বামনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভুল চিকিৎসায় জ্বরে আক্রান্ত নিপু রায় নামে দশ বছরের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শিশুটি উপজেলার সদর ইউনিয়নের রুহিতা গ্রামের লিটন চন্দ্র রায়ের একমাত্র মেয়ে।
শনিবার সকাল সাড়ে ৮ টায় শিশুটি গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে পড়লে চিকিৎসক মো. সোহেল রানা তাকে এন্টিবায়োটিক ইনজেকশন দেওয়ার কিছুক্ষন পরে সে মারা যায়। এঘটনায় শিশুটির পরিবার ও স্থানীয় কিছু মানুষ  ক্ষুদ্ধ হয়ে শিশুটির চিকিৎসক ডাঃ সোহেল রানাকে শীøলতাহানীর চেষ্টা ও অশ্লীল ভাষায় গালী গালাজ করেন বলে হাসপাতাল সুত্রে জানা যায়।
এব্যাপারে চিকিৎসক ডা. সোহেল রানা বলেন, শিশুটি তিন দিন ধরে জ্বরে আক্রান্ত হওয়ার পর গত ২৯ তারিখ হাসপাতালে ভর্তি হয়। পরিবারের লোকদের ডেঙ্গু পরীক্ষার জন্য বলা হলেও তারা আর্থিক কারণে সময় মতো সে পরীক্ষা করতে পারেনি। প্রাথমিকভাবে এটাকে সাধারণ জ্বর হিসেবে চিকিৎসা দিয়েছি। শিশুটির অবস্থা গুরুতর জেনেও তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য অন্য হাসপাতালে রেফার করা হলেনা কেনো? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, রোগীর শরীরে সাধারণ জ্বরের লক্ষন ছিলো। ডেঙ্গু বা অন্য কোন জ্বরের লক্ষন এই রোগীর ছিলোনা বলে তাকে এখানে রেখেই চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।শিশুর মৃত্যুর  ঘটনায়  রোগীর স্বজনরাসহ এলাকার কিছু মানুষ আমাকে শ্লীললতাহানী ও অশ্লীল ভাষায় গালী গালাজ করেছে এজন্য আমি খুবই মর্মাহত, যা আমি কোন দিন আশা করিনি। একজন চিকিৎসক কখনই রোগীর অমঙ্গল কামনা করেনা। চিকিৎসক হলো রুগীর সেবক তাই আমিও ঐ শিশুটির মৃত্যু হোক তা কখনোই কামনা করিনি, এজন্য আমি দুঃখিত।
জানতে চাইলে বামনা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. বশির আহম্মেদ জানান, জ্বর নিয়ে শিশুটি ভর্তি হওয়ার পরে চিকিৎসক প্রাথমিক ভাবে বুঝতে পারে এটি টাইফয়েড জ্বর। রোগীর শরীরে কোন প্রকার ডেঙ্গুর লক্ষন না থাকায় চিকিৎসক তাকে টাইফয়েড জ্বর হিসেবেই প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছেন এবং রোগীর পরিবারকে ডেঙ্গু ও টাইফয়েড জ্বরের সকল পরীক্ষা করানোর পরামর্শ দেয়া হয়। কিন্তু স্বজনরা সময় মত পরীক্ষাগুলো করায়নি। তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় শনিবার সকালে স্থানীয় এক রাজনৈতিক নেতা শিশুটির চিকিৎসককে মারতে উদ্ধত হন এবং তাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন, যা দু:খ জনক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*