শিরোনাম
Home >> তথ্যপ্রযুক্তি >> আসন্ন ঈদে প্রস্তুত পাটুরিয়া ফেরিঘাট ।

আসন্ন ঈদে প্রস্তুত পাটুরিয়া ফেরিঘাট ।

আল মামুন – ভ্রাম্যমান প্রতিনিধিঃ

আসন্ন ঈদুল আজহায় দেশের দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার যাতায়াত নির্বিঘ্ন রাখতে বিশেষ প্রস্তুতি নিয়েছে মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসন। ঈদের আগে ও পরের সাত দিন পাটুরিয়া ও দৌলতদিয়া রুটে ২০টি ফেরি চলমান থাকবে এবং প্রস্তুত রাখা হবে চারটি ঘাট। এছাড়া ঈদের তিন দিন আগে ও পরে সাধারণ পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ থাকবে।এদিকে ফেরি, লঞ্চঘাট ও টার্মিনাল এলাকায় আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে ট্রাফিক পুলিশের সঙ্গে আনসারসহ কমিউনিটি পুলিশ মোতায়েন, স্থানীয় প্রশাসনের সমন্বয়ে ভিজিলেন্স টিম গঠন, সিরিয়ালের অনিয়ম দূর করা, ঢাকা-আরিচা সড়কে যানবাহনের নিয়ন্ত্রিত চলাচল, নিরাপত্তা, অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, অতিরিক্ত যাত্রী বহন ও চাঁদাবাজি বন্ধসহ ৩৪টি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসক এস.এম ফেরদৌস ও জেলা পরিষদের চেয়ার‌ম্যান গোলাম মহিউদ্দিনের উপস্থিতিতে ২৯ জুলাইয়ের এক বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, আসন্ন ঈদুল আজহার আগের তিন দিন ও পরের তিন দিন কোরবানির পশুবাহী ট্রাক ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পচনশীল পণ্য ছাড়া সাধারণ ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান ফেরিতে পারাপার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এছাড়া আরও যেসব সিদ্ধান্ত হয়েছে সেগুলো হলো: ঈদের এক সপ্তাহ আগে মহাসড়কের টেপড়া থেকে আরিচা, পাটুরিয়া ঘাট পর্যন্ত প্রতিটি পয়েন্টে ২৪ ঘণ্টা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েনসহ বিশেষ নজরদারি বাড়ানো, পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে উথুলী সংযোগ মোড় হতে আরিচা-পাটুরিয়া ঘাট পর্যন্ত যানজট এবং হকারমুক্ত রাখতে ব্যবস্থা গ্রহণ; রাতের বেলায় পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে মালবাহী জাহাজ, বালুবাহী বাল্কহেড চলাচল বন্ধ রাখা; ফেরিতে যানবাহনের সিরিয়ালে অনিয়ম, অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও ফিটনেসহীন যানবাহনের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার সিদ্ধান্ত হয়েছে। জেলা প্রশাসন সূত্রে আরও জানা গেছে, সড়ক ও জনপথ বিভাগের পক্ষ থেকে পাটুরিয়া ফেরিঘাটে সুষ্ঠুভাবে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার, যানজট নিরসনে মহাসড়কে পর্যাপ্ত লেন, রোড ডিভাইডার স্থাপন, রোড মার্কিং ও স্পিড ব্রেকার রঙ করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের টেপড়া হতে কে আলী খান ব্রিজ ভায়া ৫নং পাটুরিয়া ঘাটে যাওয়ার ছোট গাড়ি চলাচলের রাস্তায় স্ট্রিট লাইট স্থাপন করা হবে।পাটুরিয়া ঘাটে যাত্রীদের জন্য ২০টি অস্থায়ী টয়লেট ও পানি সরবরাহ করা, যাত্রীদের জন্য অস্থায়ী শেড নির্মাণ, পাটুরিয়া-আরিচা ঘাটে সার্বক্ষণিক ৩টি রেকার প্রস্তুত রাখা, নির্ধারিত সংখ্যক যাত্রী বোঝাই হওয়ার পর নৌযানগুলোকে বন্দর ত্যাগে বাধ্য করা এবং নদীবক্ষে লঞ্চগুলোর আন্তঃপ্রতিযোগিতা পরিহার করার বিষয়ে পুলিশ টহল বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।মানিকগঞ্জ পাটুরিয়া ঘাটে একটি অস্থায়ী মেডিক্যাল ক্যাম্প স্থাপনসহ সার্বক্ষণিক প্রয়োজনীয় সংখ্যক ডাক্তার ও স্বাস্থ্য সহকারী প্রস্তুত রাখা, শিবালয় ফায়ার স্টেশনের পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রোল রুমসহ ডুবুরি দল প্রস্তুত রাখার ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলা হয়েছে।

পাটুরিয়া ঘাটের অদূরে আরসিএল মোড় হতে আরিচা-পাটুরিয়া ঘাট পর্যন্ত অস্থায়ী বৈদ্যুতিক লাইন ও পর্যাপ্ত হ্যালোজেন বাতি বসানোসহ ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রোলরুমে সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ সরবরাহের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।দুর্ঘটনা এড়ানোর লক্ষ্যে ফেরি যাতে লঞ্চ ঘাটের কাছে চলে না আসে সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়।পাটুরিয়া ও আরিচা ফেরিঘাটে ইঞ্জিনচালিত ট্রলারে যাত্রী পারাপার বন্ধের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এদিকে বিআইডব্লিউটিসি আরিচা এরিয়া অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মো. আজমল হোসেন জানান, ঈদ উপলক্ষে তাদের প্রস্তুত থাকবে ২০টি ফেরি। এরমধ্যে থাকতে পারে ৯টি রো-রো (বড়) ফেরি, ৬টি ইউটিলিটি ফেরি, ৪টি কে টাইপ ফেরি ও একটি মিডিয়াম ফেরি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*